Wednesday, January 8, 2014

A Tribute to Rashid Talukder


Rashid Talukdar was a famous Photojournalist  in Bangladesh and most known as capturing some the defining images of the atrocities during the Bangladesh Liberation War of 1971.

Talukder was a founder of the Bangladesh Photo Journalists’ Association. He was awarded the Lifetime Achievement Award at the Chobi Mela, an international photography festival in Dhaka, in 2006, and the 2010 'Pioneer Photographer Award' given by the National Geographic.

Here I like to showcase some of his photographs as a tribute.


রশীদ তালুকদার (জন্ম: ২৪শে অক্টোবর, ১৯৩৯ - মৃত্যু: ২৫শে অক্টোবর, ২০১১) বাংলাদেশের প্রথিতযশা ও জনপ্রিয় আলোকচিত্রশিল্পী ছিলেন। তাঁর ডাক নাম ছিল কাঞ্চন। সহকর্মীদের কাছে 'রশীদ ভাই' নামে পরিচিত ছিলেন তিনি। যৌবনে গোটা রাজশাহীতে পরিচিত ছিলেন 'প্রিন্স রশীদ' নামে। বীর বাঙালীদের স্বাধিকারের দাবিতে স্বাধীনতা-পূর্ব ঊনসত্তরের গণঅভ্যুত্থানের স্থিরচিত্র ধারণ করে স্মরণীয় করে রেখেছেন নিজেকে।


ছাত্রদের অসহযোগ আন্দোলনে শহীদ আসাদের মৃত্যুতে প্রত্যক্ষদর্শী হিসেবে ছিলেন তিনি। বাংলাদেশের অন্যতম জনপ্রিয় আলোকচিত্র শিল্পী হিসেবে তাঁর ক্যামেরায় স্থিরচিত্র হিসেবে ফুঁটে উঠেছিল ছাত্র-জনতার দীর্ঘ মিছিলসহ আসাদের শার্টের ছবি।
বাংলাদেশের স্বাধীনতা-পূর্ব তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তানের গণ-অভ্যুত্থানের স্থির চিত্র হিসেবে মিছিলের সম্মুখভাগে টোকাই বা পথশিশুর ছবি তুলে সকলের নজর কাড়েন তিনি। পরবর্তীতে বাংলাদেশের মহান স্বাধীনতা যুদ্ধের পর ঢাকার রায়েরবাজার বধ্যভূমি থেকে বুদ্ধিজীবীদের লাশ উত্তোলনের ছবিও তিনিই ধারণ করেন। ১৯৭০ সালে তৎকালীন পাকিস্তান সরকারের বিরুদ্ধে ছাত্রদের অসহযোগ আন্দোলনকেও ক্যামেরায় ধারণ করেন রশীদ তালুকদার।
১৯৭১ সালে পেশাগত জীবন থেকে কিছুটা দূরে সরে এসে মুক্তিযোদ্ধাদের সাথে মিশে যান তিনি। নানাভাবে সাহায্য-সহযোগিতা করতে শুরু করেন বীরসেনানীদেরকে। এ সময় তাঁর প্রিয় ১৩৫ মি.মি. ক্যামেরা সবসময় সঙ্গে থাকতো। আইস্যুলেট ক্যামেরা দিয়ে শুরু করেছিলেন ছবি তোলা। এরপর রোলিকর্ড, রোলিফ্লেক্স এবং নাইকন ক্যামেরাও ব্যবহার করেছেন রশীদ তালুকদার।

আলোক চিত্রকলায় অসামান্য অবদানের জন্য দেশ-বিদেশের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান থেকে স্বর্ণপদকসহ প্রায় ৭৭টি পুরস্কার লাভ করেন রশীদ তালুকদার। তন্মধ্যে -
  • ২০০৬ সালে তাঁকে 'ছবি মেলা আজীবন সম্মাননা পুরস্কার' প্রদান করেন বাংলাদেশের তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা সি. এম. শফি সামি।
  • ২০১০ সালে প্রথম বাংলাদেশী হিসেবে বিশ্বের অন্যতম বৃহৎ অলাভজনক বিজ্ঞান ও শিক্ষা বিষয়ক প্রতিষ্ঠান ন্যাশনাল জিওগ্রাফিক সোসাইটি'র পক্ষ থেকে ‘পাইওনিয়ার ফটোগ্রাফার অ্যাওয়ার্ড’ পুরস্কার লাভ।
  • জাতিসংঘ কর্তৃক ‘নিরাশ্রয়ের জন্য আশ্রয়’ শীর্ষক প্রতিযোগিতায় একত্রে ৬টি পুরস্কার অর্জন।
  • জাপান ফটোগ্রাফিক সোসাইটি ও আসাহি সিমবুন পত্রিকার যৌথ উদ্যোগে আয়োজিত প্রতিযোগিতায় পরপর দুইবার পুরস্কৃত হওয়া অন্যতম।
উল্লেখ্য যে, রশীদ তালুকদার ছিলেন বাংলাদেশ ফটোজার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশনের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি।
 মাথায় আঘাতজনিত কারণে মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণ ঘটে রশীদ তালুকদারের। পরে ৭২ বছর বয়সে ২৫ অক্টোবর, ২০১১ইং তারিখ মঙ্গলবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় স্কয়ার হাসপাতাল, ঢাকায় মৃত্যুবরণ করেন তিনি।

0 comments: